আজ ৬ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে তরুণীকে লাঞ্চিত ,যুবক কারাগারে

খাসখবর প্রতিবেদক

নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে এক তরুণীকে লাঞ্চিত করার ঘটনায় মো. ইসমাইল ইসলাম (৩৫) নামে আটক যুবককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। শনিবার (২১ মে) জেলার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম দ্বিতীয় আদালতের বিচারক মেহেদী হাসান তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আটক ইসমাইল নরসিংদী সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের বুদিয়ামারা এলাকার বাসিন্দা।

এর আগে সিসিটিভির ফুটেজ এবং মোবাইল ফোনে ধারণ করা ভিডিওর সূত্র ধরে ওই যুবকের পরিচয় নিশ্চিত করে পুলিশ। পরে শুক্রবার (২০ মে) রাত ৯টার দিকে নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশন-সংলগ্ন এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশন সূত্রে জানা যায়, বুধবার ভোর সোয়া পাঁচটার দিকে নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে দুই তরুণসহ আসেন ওই তরুণী। সকাল পৌনে ছয়টা পর্যন্ত স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে তারা ঢাকাগামী ঢাকা মেইল ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় স্টেশনে মধ্যবয়সী এক নারী ওই তরুণীকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘এটা কী পোশাক পরেছো তুমি’। তরুণীও পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘আপনার তাতে কী সমস্যা হচ্ছে?’ এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এর মধ্যে সেই বিতর্কে যোগ দেন স্টেশনে অবস্থানরত অন্য কয়েকজন ব্যক্তি।

ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটিতে দেখা যায়, ওই তরুণীকে ঘিরে রেখেছে একদল ব্যক্তি। এর মধ্যেই এক নারী উত্তেজিত অবস্থায় তার সাথে কথা বলছেন। বয়স্ক এক ব্যক্তিও তার পোশাক নিয়ে কথা বলছেন। একপর্যায়ে ওই তরুণী সেখান থেকে চলে যেতে উদ্যত হলে ওই নারী দৌড়ে তাকে ধরে ফেলেন। এ সময় অশ্লীল গালিগালাজ করতে করতে তার পোশাক ধরে টান দেন ওই নারী। কোনোরকমে দৌড়ে নিজেকে সামলে নেন স্টেশনমাস্টারের রুমে ঢূকে।

এ সময় তার সাথে থাকা দুই তরুণকেও মারধর করতে দেখা যায় ঘটনাস্থলে থাকা কয়েকজন ব্যক্তিকে। পরে তারাও দৌড়ে স্টেশনমাস্টারের কক্ষে চলে যান। পরে ভুক্তভোগী তরুণী জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন দিলে নরসিংদী মডেল থানার পুলিশ রেলস্টেশনে এসে তাদের ঢাকার ট্রেনে উঠিয়ে দেয়।

এ ঘটনার পর নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে নিরাপত্তা আরও জোড়দার করার পাশাপাশি ঘটনার সাথে জড়িত অন্যদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইমায়েদুল জাহেদী বলেন, ইসমাইলকে আটকের পর থানায় দেওয়া হয়। তবে তার বিরুদ্ধে লাঞ্চিতের শিকার কেউ অভিযোগ করেননি। পরে অভিযুক্ত যুবককে আদালতে তোলা হলে বিচারক ফৌজদারি আইনের ৫৪ ধারায় তাকে কারাগারে পাঠান।

তিনি আরও বলেন, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে ঘটনার সাথে অন্য কেউ জড়িত থাকলে তাদেরও দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ