আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চিনিশপুরবাসীর ইচ্ছায় চেয়ারম‍্যান পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করবে তরুন সমাজ সেবক তুহিন

আব্দুল জলিল মিয়া

মেহেদী হাসান তুহিন নরসিংদীর চিনিশপুর ইউনিয়নবাসীর একটি পরিচিত মুখ। চিনিশপুর ইউনিয়নবাসী তাকে ন্যায়-নীতিবান ও একজন সদালাপী মানুষ হিসেবেই জানেন এবং মানেন।

ইউনিয়নের দগরিয়া থেকে সেই সোনাতলা পর্যন্ত পুরো ইউনিয়ন জুড়েই ছিল তার অবাধ বিচরণ। শুধু পরিচিত নয় ইউনিয়নের যে কোন মানুষের বিপদে-আপদে তিনি ছুটে যান এবং সাধ্যমত তা লাগবের চেষ্টা করেন।তাইতো চিনিশপুর ইউনিয়নের আবাল-বৃদ্ধা সকলের কাছে তরুন এই সমাজ সেবক অল্প বয়সেই হয়ে যান প্রিয় তুহিন ভাই।

ইতোমধ্যেই তৃতীয় ধাপে চিনিশপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছেন নির্বাচন কমিশন।আগামী ২৮ নভেম্বর ইউনিয়নের ভোটগ্রহন করা হবে। ওইদিন ইউনিয়নবাসী তাদের রায়ের মাধ্যমে আগামীদিনের নেতা (চেয়ারম্যান) নির্বাচিত করবেন। সেই চিন্তা-ভাবনায় ইউনিয়নবাসীর ইচ্ছা তাদের প্রিয় তুহিন চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হোক। দল নয় ইউনিয়নবাসীর কাছে ব্যক্তি তুহিনের রয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা।

মেহেদী হাসান তুহিন চিনিশপুর ইউনিয়নের চিনিশপুর ঐতিহ্যবাহী ভূঁইয়া বাড়ীর সন্তান। পিতা জালাল উদ্দিন ভূঁইয়াসহ চাচা বদিউজ্জামান ভূঁইয়ার রয়েছে ব্যাপক পরিচিতি ও নাম-ডাক।

মেহেদী হাসান তুহিন ছাত্র জীবন থেকে এলাকাবাসীর কাছে একজন উদার মনের মানুষ হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। এলাকার গরিব-দু:খি মানুষের জন্য তিনি সদা সিদ্ধহস্ত। সেই ছোটবেলা থেকেই এলাকার গরিব-দু;খিদের সাহায্য সহযোগিতায় তিনি ছিলেন উদার। তিনি সবসময়ই এলাকার গরিব দু:খিদের খবরাখবর নিতেন এবং তার সাধ্যমত সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতেন। ইউনিয়নবাসী তাদের দু:সময়ের এই পরম প্রিয় বন্ধুটিকে আগামী নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে দেথতে চায়।এলাকাবাসীর ঐকান্তিক ইচ্ছায় তাদের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে চিনিশপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি মেহেদী হাসান তুহিন নির্বাচনে অংশগ্রহন করার মত প্রকাশ করেছেন।

মেহেদী হাসান তুহিন বলেন, মানুষ সামাজিক জীব। আমি এর বাহিরে নই। চিনিশপুর ইউনিয়নবাসীর ঐকান্তিক ইচ্ছা আমি নির্বাচনে অংশ নিয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করি। আমি বরাবরই এলাকাবাসীর মতামতের প্রাধান্য দিয়ে এসেছি।তাদের মতমতের ভিত্তিতে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করার মনোস্থির করেছি।সেই চিন্তা থেকেই মনোনয়নপত্র সংগ্রহও করেছি। এলাকাবাসীর দোয়া নিয়ে আমি আগামী মঙ্গলবালবার ( ২ অক্টোবর)  মনোনয়নপত্র জমা দিব।

তিনি আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি, অতীতে যেরকম ভাবে চিনিশপুরবাসী আমার পাশে ছিল আগামী দিনেও তারা আমার পাশে থাকবে। চিনিশপুরবাসীর দোয়া ও সমর্থন আমার সাথে থাকলে চেয়ারম্যান পদে আমি নির্বাচিত হতে পারব, ইনশাল্লাহ। আমি নির্বাচিত হতে পারলে অবহেলিত নিপীড়িত, সুবিধাবঞ্চিত জনসাধারণের মৌলিক অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে কাজ করে যাব।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ