আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

হাইরমারায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

খন্দকার শাহ নেওয়াজ

নরসিংদীর রায়পুরায় দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায় ৬ জন আহত হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার হাইরমারা ইউনিয়নের দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের কামরুজ্জামান ও মাহফুজুল হক বাবলা চশমা প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে এ ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, মৃত সারোয়ার মিয়ার ছেলে রাসেল (৩৩), আলমগীর হোসেনের ছেলে আরিফ  (৩৫),  তরিফ (৩৭), গোলাপ মিয়ার ছেলে খোকন (৪২),  খোকা মিয়ার ছেলে ফেরদৌস (৩০) ও ইলিয়াস আলীর ছেলে ঝিকু (৩০)। তাদের সকলের বাড়ী সাউদপাড়া গ্রামে এবং তারা আনারস প্রতীকের প্রার্থী  কামরুজ্জামানের সমথর্ক।

আহতদের মধ‍্যে গুরুতর আহত অবস্থায় ফেরদৌসকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকিরা নরসিংদী সদর হাসপাতালসহ স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার হাইরমারা ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম‍্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুজ্জামান তার নিজ গ্রাম সাউদপাড়া এলাকায় তার কর্মী-সমর্থকদের সাথে নিয়ে গণসংযোগ করা কালীন সময়ে অপর চেয়ারম‍্যান প্রার্থী চশমা প্রতীকের মাহফুজুল হক বাবলার সর্মথকরা তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় উভয় গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। হামলায় কামরুজ্জামানের ৬ জন সমর্থক আহত হয়। তারা ঢাকাসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

হামলার ঘটনায় স্থানীয় জনতা  মাহফুজুল হক বাবলার ২ সমর্থক রতন মিয়ার ছেলে ইমন (২৩) ও কাজল মিয়ার ছেলে আরিফ (১৮) কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এঘটনায় এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে

রায়পুরা থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আতাউর রহমান বলেন, উক্ত ঘটনায় আনারস প্রতিক সমর্থক ৪/৫ জন আহতের খবর পেয়েছি। হামলায় জড়িত ২ জনকে জনতা আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ