আজ ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বাঁশগাড়ীতে নির্বাচনের কয়েক ঘন্টা পূর্বে দুই পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময়, নিহত ৩

খন্দকার শাহ নেওয়াজ

নির্বাচনের ঠিক কয়েক ঘন্টা পূর্বে ভোররাতে গোলাবারুদের আওয়াজে কেঁপে উঠলো রায়পুরার চরাঞ্চল। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) ভোররাত থেকে উপজেলার প্রত্যন্ত চরাঞ্চল বাঁশগাড়ীতে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে নির্বাচনী সহিংসতায় ককটেল নিক্ষেপসহ গুলি বিনিময় চলে। এ সহিংস ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে উভয় পক্ষের গুলিবিদ্ধ হয়ে ৩ জনের মৃত্যূ হয়। বাঁশগাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আ’লীগ দলীয় প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে এই নিহতের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, বাঁশগাড়ির বালুয়াকান্দি গ্রামের হেকিম মিয়ার ছেলে মো: সালাউদ্দিন মিয়া (৩০), বটতলীকান্দি গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে দুলাল মিয়া (২৮) এবং সোবহানপুর গ্রামের আব্দুল হক মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর (২৬)।

নিহত সালাউদ্দিন ও জাহাঙ্গীর ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জাকির হোসেন রাতুলের সমর্থক এবং দুলাল মিয়া নৌকার প্রার্থী আশরাফুল হকের সমর্থক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বাঁশগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এই ইউপিতে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বান্ধতা করছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মো: আশরাফুল হক। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচনের মাঠে আছেন জাকির হোসেন রাতুল । ভোটগ্রহণ শুরুর আগেই এই ইউনিয়নে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আশরাফুল পক্ষের সমর্থকদের গুলিতে রাতুলের পক্ষের দুইজন এবং আশরাফুলের আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে।

নিহত সালাউদ্দিনের স্ত্রী আঁখি বেগম জানান, গতকাল সারারাত ধরে এলাকায় কিছুক্ষণ পরপর ককটেল বিষ্ফোরণ করা হচ্ছিল। ভোর ৬টার দিকে আমাদের ঘরের সামনে কয়েকটি ককটেল বিষ্ফোরণ করা হয়। তীব্র শব্দে ঘর থেকে বাইরে বের হন সালাউদ্দিন। এরপরই তাকে উদ্দেশ্য করে দুর্বৃত্ত্বরা গুলি ছুড়লে তা এসে তার উরুতে লাগে। এসময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তারা চলে যায়।

পরে তাঁর পরিবারের সদস্য ও স্থানীয় লোকজন গুলিবিদ্ধ সালাউদ্দিনকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে হাসপাতালটির জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রায়পুরা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সত্যজিৎ কুমার ঘোষ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বাঁশগাড়িতে এখন পর্যন্ত গুলিবিদ্ধ হয়ে একজনের লাশ এলাকায় রয়েছে বলে নিশ্চিত হয়েছি। এদিকে নরসিংদী সদর থানার ওসি তদন্ত হারুন অর-রশিদ জানান, বাঁশগাড়ীর ঘটনায় নরসিংদী সদর ও জেলা হাসপাতালে দুইজনের লাশ আনা হয়েছে।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ