আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ফের উত্তপ্ত নিলক্ষ্যা; দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ২০ জন

খাসখবর প্রতিবেদক

ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে নরসিংদীর রায়পুরার চরাঞ্চল নিলক্ষ্যা ইউনিয়ন। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মোখলেছ মিয়া (২৫) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। টেঁটা ও গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন। স্থানীয় সুমেদ আলী ও শহীদ মেম্বারের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার করে।

নিহত মোখলেছ উপজেলার নিলক্ষ্যা ইউনিয়নের ঢেরাচর এলাকার শাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে এবং সুমেদ আলীর সমর্থক। তবে এলাকাবাসী জানিয়েছে, সংঘর্ষে মোসলেম মিয়া ছাড়াও আমির মেম্বার নামে অপর আরেক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এদিকে আহত সবার নাম-পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নিলক্ষ্যা ইউনিয়নের সুমেদ আলী ও শহীদ মেম্বার গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এর আগে দুটি গ্রুপ একাধিকবার সংঘর্ষে জাড়ায়। এতে হত্যাকাণ্ডসহ বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটের ঘটনা ঘটে। এর পর থেকে এলাকাছাড়া ছিল সুমেদ আলীর লোকজন। দেড় মাস আগে জামিনে মুক্ত হয় তিনি।

মঙ্গলবার দুপুরে সুমেদ আলী পাশ্ববর্তী চরাঞ্চল বাঁশগাড়ী, চরমধুয়া পাড়াতলী থেকে বহিরাগতদের সহযোগিতায় তার সমর্থকদের নিয়ে এলাকায় ওঠেন। পরে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দা, ছুরি, বল্লম, টেঁটা ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনের বাড়িতে হামলা চালান। সমেদ আলীর সমর্থকসহ বহিরাগতরা গোপিনাথপুর, দড়িগাঁও ও দাড়িপুর গ্রামে ঢুকে তান্ডব চালায়। এ সময় শহীদ মেম্বারের লোকেরাও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পাল্টা হামলা চালায়। সংঘর্ষ চলাকালে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান মোখলেছ। সুমেদ আলীর পক্ষ হয়ে সংঘর্ষে অংশ নিয়ে গুরুতর আহত হয় বাঁশগাড়ী ইউপির সাবেক সদস্য আমির হোসেনসহ উভয় পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন। আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী ও ঢাকায় পাঠানো হয়। খবর পেয়ে রায়পুরা থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

খবর পেয়ে রায়পুরা উপজেলা কর্মকর্তা মো. আজগর হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপার (রায়পুরা সার্কেল) সত্যজিত ঘোষ, সহকারী কমিশনার মো. সাজ্জাত হোসেন এবং রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

সহকারী পুলিশ সুপার (রায়পুরা সার্কেল) সত্যজিৎ কুমার ঘোষ জানান, ঘটনায় জড়িত মূল হোতাদের ধরতে অভিযান চলছে। বর্তমানে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলে জানান তিনি।

নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এরই জেরে আজ পুনরায় তারা সংঘর্ষে জড়ায়। এতে একজন নিহত হয়েছে। আমির মেম্বারের স্বজনরা আমাকে জানিয়েছেন, তারা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ