আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রায়পুরায় শিক্ষার্থীর গলায় ফাস

রায়পুরা প্রতিনিধি

নরসিংদীর রায়পুরায় এস এস সি পরীক্ষায় ফেল করায় সাদিয়া আক্তার (১৫) নামে এক শিক্ষার্থী গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার করেছে। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে রায়পুরা উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুনগর জাহিরের বাড়ির নিজ ঘরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

নিহত সাদিয়া আক্তার উপজেলার সাধুনগর গ্রামের জাহিরের বাড়ির কৃষক সোহরাব মিয়ার মেয়ে। সে এবছর এসএসসি পরীক্ষায় আলহাজ্ব বজলুল হক জে এম উচ্চ বিদ্যালয় (জয়নগর) থেকে মানবিক বিভাগে অংশ নেয়। ফলাফলে সে ইংরেজী দ্বিতীয় পত্র ও গণিত বিষয়ে প্রয়োজনের তুলনায় কম নাম্বার পাওয়ায় পরীক্ষা অকৃতকার্য হয় সে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, নিহত শিক্ষার্থী সাদিয়া সোমবার পরীক্ষায় ফলাফল পাওয়ার পর অকৃতকার্য হওয়ার খবরে কান্না কাটি করতে থাকলে প্রতিবেশী ও পরিবারের সদস্যরা তাকে শান্তনা দেন । ওই শিক্ষার্থী বড় বোনের সাথে মোবাইল ফোনে মন খারাপের বিষয়টি জানায়। তার মন খারাপের খবরে বড় বোন তাকে শান্তনা দিতে মঙ্গলবার দুপুরে বাড়ি এসে ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ দেখে তাকে ডাকাডাকি করতে থাকে। ভিতর থেকে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীদের সহায়তায় দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে গলায় ওড়না পেচানো অবস্থা সিলিং ফ্যানের সাথে সাদিয়া নিথর দেহ ঝুলে থাকতে দেখতে পায়। পরে স্থানীয়রা রায়পুরা থানায় খবর দেয় । খবর পেয়ে রায়পুরা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মহদেহ উদ্ধার করে

নিহতের চাচাতো ভাই জুয়েল মিয়া জানান, গতকাল পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় মন খারাপ করে অনেক কান্নাকাটি করে সে। ঘটনার সময় তার বাবা বাড়ির বাহিরে ছিলো। ধারণা করা হচ্ছে, পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় একা ঘরে ওড়না পেঁচিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলে আত্মহত্যা করে।

নিহতের বান্ধবী লিজা জানান, ‘পরীক্ষায় ফেল করার পর থেকে রাত পর্যন্ত সাদিয়া খুব কান্নাকাটি করে। আমি সহ বাড়ির সকলে বোর্ডে পুনরায় ফলাফল যাচাইয়ের আবেদন করতে বলে পাশাপাশি মনটাকে শক্ততে শান্তনা দেই। মঙ্গলবার বিকেলে অনলাইনে পুণরায় যাচাইয়ের আবেদন করার কথা ছিল।’

রায়পুরা থানার উপপরিদর্শক মো. নাসির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে েউপস্থিত হয়ে মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করা হয়। পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ