আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নরসিংদীতে পারিবারিক কলহে স্ত্রী সন্তানকে গলা কেটে হত্যা, স্বামী আটক

মাজহারুল ইসলাম রাসেল

নরসিংদীতে পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী সন্তানকে গলা কেটে হত্যা করেছে এক মাদকাসক্ত স্বামী। এঘটনায় স্বামী ফখরুলকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার (১২ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের ঘোড়াদিয়া এলাকা থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতরা হলেন নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের ঘোড়াদিয়া গ্রামের ফখরুল ইসলামের স্ত্রী রেশমি আক্তার (২৫) ও তার ১৩ মাসের শিশু সন্তান সালমান সাফায়াত ।

সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, প্রায় দুই বছর আগে পারিবারিকভাবে নরসিংদী শহরের দত্তপাড়া এলাকার রেশমি আক্তারের সঙ্গে নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের ঘোড়াদিয়া এলাকার সাইফুল্লার ছেলে ফখরুল ইসলামের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই মাদকাসক্ত স্বামীকে নিয়ে শ্বশুর-শাশুড়ির সাথে ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকতো স্ত্রী রেশমি আক্তারের।

বিয়ের পর চাকরি না থাকায় ছেলে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে এমন অভিযোগে ছেলে ফখরুলকে রিহ্যাব সেন্টারে দেয় তার বাবা-মা। পরে স্ত্রীর আবদারে তাকে রিহ্যাব থেকে বাড়িতে নিয়ে আসে। এদিকে পারিবারিক কলহের জেরে রবিবার দিনগত রাতে ফখরুল ও তার স্ত্রী রেশমী বেগমের মধ্েয কথা কাটাকাটি শুরু হয়। কথাকাটির এক পর্যায়ে ফখরুল তার ক্রোধ ধরে রাখতে না পেরে স্ত্রী-সন্তান উভয়কে ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেন। পরে খবর পেয়ে রাত ৩টার দিকে পুলিশ এসে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে। হত্যাকান্ডের পর পালিয়ে যাওয়ার সময় ফখরুলের স্বজন ও এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান জানান, নিহতদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ