আজ ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নরসিংদীতে তাঁতী লীগের উদ্যোগে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

মানাবেন্ড রায়

বঙ্গবন্ধুর জৈষ্ঠ্য কন্যা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে নরসিংদী জেলা তাঁতী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার (১৭ মে) সন্ধ্যা ৭টায় নরসিংদী শহরস্থ শেরেবাংলা ক্লাব অডিটোরিয়ামে নরসিংদী জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক কায়কোবাদ হোসেন কানু’র সভাপতিত্বে জেলা তাঁতী লীগের সদস্য সচিব হিরু সরকার এর সঞ্চালনায় অত্র অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নরসিংদী শহর আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব আশরাফ হোসেন সরকার।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর থানা তাঁতী লীগের সভাপতি আশিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শেখ মহিউদ্দিন, শহর তাঁতী লীগের আহবায়ক বিজয় সাহা, যুগ্ম আহবায়ক তৌহিদ ফকির সোহাগ, পলাশ উপজেলা তাঁতী লীগের সভাপতি শরিফ আহমেদ, ঘোড়াশাল পৌর তাঁতী লীগের সভাপতি আমজাদ হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা আলী সরকার, দেলোয়ার হোসেন ভূঁইয়া, শেখ রাসেল পরিষদের সাবেক সভাপতি মাসুদ করিম রাজা সরকার ও শহর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রিপন।

প্রধান অতিথি বক্তব্যে বলেন আলহাজ্ব আশরাফ হোসেন সরকার. আজ এইদিনে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করছি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ নায়ক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ও বঙ্গবন্ধুর পরিবারের শাহাদাত বরণ করা সকল শহীদদের প্রতি। সেই সাথে স্বরণ করছি জাতীয় চার নেতাসহ মহান স্বাধীনতার যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে শাহাদাত বরণকারী সকল মুক্তিযোদ্ধাদের। ১৯৮১ সালের এ দিনে (১৭ মে) বাংলার মাটিতে পদার্পণ করেছিলেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা বিশ্বনন্দিত নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি সকল যড়যন্ত্র ও বাঁধা পেরিয়ে বাঙ্গালি জাতির মুখে হাসি ফোটাতে পা রেখেছিলেন এবং রাজনৈতিক কালো অধ্যায় একনায়কতন্ত্র স্বৈরাচারী শাসনতন্ত্রকে বিতাড়িত করে এদেশের মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেন। তিনি তার জীবন বাজি রেখে গণতন্ত্র ফিরিয়ে এনে মানুষের মুখে দু’বেলা দুমুঠো খাবার এবং এ দেশকে বিশ্ব দরবারে উন্নত সমৃদ্ধিশালী রাস্ট্রে পরিনত করেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনে কাজ করে যাচ্ছেন। তাই ঐতিহাসিক ১৭ মে বাঙালি জাতির চিরঞ্জীব আশা ও অনন্ত অনুপ্রেরণার উৎস দেশরত্ন শেখ হাসিনা।

আলোচনা শেষে স্থানীয় মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা আব্দুল গাফফার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধু মাতা ও বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বরণকারী সকল সদস্যদের রুহের আত্মার মাগফেরাত কামনা, শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু এবং দেশ ও দশের কল্যানে মোনাজাত করা হয়।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ